একজন কম্পিউটার সায়েন্টিস্ট- এর সিলেবাস

আমরা যারা কম্পিউটার বিজ্ঞান নিয়ে ঘাটাঘাটি করি বা কম্পিউটার সায়েন্সে পড়াশোনা করি তাদের মধ্যে কতজন “Computer science trends in 2017” কথাটি লিখে একবার হলেও গুগলে সার্স করেছেন?

আমার মনে হয় না ১০% পাঠকও এই টাইপের কোনকিছু গুগলে লিখে কখনো জানার চেষ্টা করেছেন। কারন আমাদের হয়তো ক্লাস, এসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন আর ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম বানানোর ব্যস্ততায় অন্যকিছু করা দুরূহ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু আসলেও কি তাই? আমরা যে কোডব্লক ইউজ করে কোডের হাতেখরি নিয়েছি, এরপরে সারাজীবন যদি সেই কোডব্লকটা ইউজই করে যাই তাহলে এইরকম আরও হাজারো কোডব্লক কারা বানাবে? একটু ডিফারেন্ট চিন্তা করা কি আপনার, আমার উচিৎ না??

আপনি ধরলাম ওয়েব ডেভেলপিংই করেন। যেখানে পিএইচপি দিয়ে ডেভেলপ করলে আপনি $৫ প্রতি ঘন্টা পাচ্ছেন আর জ্যাঙ্গো দিয়ে করলে পাচ্ছেন $২০, তাহলে আপনি কোনটা চুজ করবেন??
আমি জানি অনেকেই চাইবেন না নতুন করে জ্যাঙ্গো শিখতে। কারন এটা তার বাপ-দাদা কেউ করে আসেনি, এবং সে পিএইচপিতে আগে থেকে অভ্যস্ত। এখানেই আমাদের সীমাবদ্ধতা..

এবার ভার্সিটির কথায় আসি। আমরা যারা ভার্সিটিতে প্রতিটা সেমিস্টারের ল্যাবের জন্য কোন প্রোজেক্ট করে থাকি, বছরের পর বছর সেই ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ছাড়া আর কিছু আমাদের মাথায় আসে কি?
আমাদের এপ্রোচ দেখে মনে হয় বাবা-মা জন্মের পর পরই ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের একটা টীকা দিয়ে দিয়েছিলেন শরীরে। যার ফলে লাইব্রেরী ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমকে বানাচ্ছি হসপিটাল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, পরবর্তী সেমিস্টারে সেটাকে আবার বানাচ্ছি হোস্টেল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, আবার হয়তো সেই হোস্টেল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমটাকেই বানাচ্ছি হোটেল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম! ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম করার জন্যই হয়তো একেকটা কম্পিউটার বিজ্ঞানীদের জন্ম..

এবার ক্যারিয়ার গোল নিয়ে কথা বলি। চার বছরের বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে “তুমি ভবিষ্যতে কী নিয়ে কাজ করতে চাও?” এই প্রশ্নটার সম্মুখীন হতে হয় কয়েকশো বার! আমিই বলছি-

  • সফটওয়্যার ডেভেলপার
  • ওয়েব ডেভেলপার
  • এনড্রয়েড ডেভেলপার
  • সিস্টেম এডমিনস্ট্রেটর
  • আইটি ফার্ম দেয়া
  • প্রোগ্রামার হওয়া
  • টিচার হওয়া

এসবের বাইরে কেউ কখনো প্রশ্নটির উত্তর করেছেন কিনা? করলেও সেটা কত শতাংশ?? এখানেই আমাদের চিন্তার মাপকাঠি স্পষ্ট হয়..

ভার্সিটিতে থাকা অবস্থায় কতজন বলেছেন আমি একজন বিজ্ঞানী বা ডেটা সায়েন্টিস্ট হতে চাই? অথচ তিনি কম্পিউটার বিজ্ঞান এবং প্রকৌশল নিয়েই পড়াশোনা করছেন।
কতজনই বা বলেছেন আমার লক্ষ্য হল IEEE-তে ৩ টা পাবলিকেশন পাবলিশ করা।
কতজন ভেবেছেন, আমি বাংলাদেশের ট্রাফিক সমস্যার সমাধান কম্পিউটার সায়েন্স দিয়ে কিভাবে করা যায় সেটা একটু গবেষণা করে দেখি, আমি যদি সফল নাও হই পরবর্তীতে হয়তো কেউ এটা নিয়ে কাজ করবে এবং সফল হবেই..

কতজন ভেবেছেন তিনি ফাইনাল ইয়ারের প্রজেক্ট বা থিসিসটা IoT, AI বা ML নিয়ে করবেন? কতজন ভেবেছেন বাংলাদেশে থেকেই ইউএসএতে চলা টেসলা গাড়ির সিস্টেম আপগ্রেটে তারও কন্ট্রিবিউশন থাকতে পারে??
জানি খুব কম লোকেই ভেবেছেন, কারন এই ব্যাপারগুলো অন্যান্য কাজের চাপে জানা হয়ে ওঠেনি কখনো।

তাহলে কী হতে পারে আমাদের একেকজন কম্পিউটার সায়েন্টিস্টদের চিন্তার সিলেবাস? আপনারাই ভেবে দেখুন… আমি পরবর্তীতে এটা নিয়ে আরও কিছু লেখালেখির ট্রাই করবো।

Learn Python! ধন্যবাদ… 🙂